গ্রীন টি এর উপকারিতা ও অপকারিতা

গ্রিন টি বিশ্বব্যাপী খাওয়া একটি জনপ্রিয় পানীয়।সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, এটি হেলথ ড্রিঙ্ক হিসাবেও জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।গ্রিন টি ক্যামেলিয়া সিনেনেসিস গাছের পাতা থেকে উদ্ভূত হয় এবং বিভিন্ন ধরণের হয়।এটি গরম, ঠান্ডা বা গুঁড়ো আকারে উপভোগ করা যায় এবং এটি এর উচ্চ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সামগ্রী এবং স্বাস্থ্যগত সুবিধার জন্য স্বীকৃত।

গ্রীন টি এর উপকারিতা ও অপকারিতা

গ্রীন টি এর উপকারিতা ও অপকারিতা

গ্রিন টি গ্রহের অন্যতম স্বাস্থ্যকর পানীয় বলে মনে করা হচ্ছে।এটিতে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট   রয়েছে যার অনেকগুলি স্বাস্থ্য সুবিধা রয়েছে, যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে:চর্বি ক্ষয়,ক্যান্সারের বিরুদ্ধে রক্ষা,হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় এছাড়া আরো অনেক গুনাবালী আছে।আজ আপনাদের জানাবো গ্রীন টি এর উপকারীতা ও অপকারীতা।

উপকারীতাঃ

১।গ্রীন টির সবথেকে বড় গুণ হল এটি যেকোনো ধরনের ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।যেমন স্কিন ক্যানসার,ব্রেস্ট ক্যানসার,লাঙ ক্যানসার,লিভার ক্যানসার,গলব্লাডার ক্যানসার,প্রস্টেট ক্যানসার ইত্যাদি।

২।বিভিন্ন গবেষনায় থেকে দেখা গেছে যে যাঁরা প্রতিদিন ১ কাপ গ্রীন টি খান তদের তুলনায় যাঁরা প্রতিদিন ৫ কাপ গ্রীন টি খান তদের হার্ট অনেক বেশি ফিট।তদের কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ হবার সুজোগ খুবই কম।

৩।যদি গ্রীন টি রোজ পান করা যায় তাহলে ডায়াবেটিসের মত রোগকে নিয়ন্ত্রনে রাখা যায়।

৪।গ্রীন টি ত্বক ও চুল কে সুন্দর রাখতেও ভীষণ ভাবে উপকারী।শুধু সুন্দর নয় বিভিন্ন ত্বকের সমস্যা যেমন ব্রণ,প্যাচি স্কিন,ত্বক ফেটে যাবার সমস্যা এছাড়াও খুশকির মত সমস্যা যেটা থেকে মুক্তি পাওয়া খুব কঠিন সেটি থেকেও মুক্তি দেয় এই গ্রীনটি।

৫।শরীরের বিভিন্ন অংশের অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে গ্রিন টি গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৬।গ্রীন টির আরেকটি অসাধারণ গুণ হল এটি আমদের ব্রেন কে সঠিক ভাবে পরিচালিত করতে সাহায্য করে ।এটি ব্রেনে রক্ত সঞ্চালনকে ঠিক রাখে। তারফলে ব্রেন দ্রুত কাজ করে।

৭।গ্রিন টিতে থাকা কেটচিনগুলিও ওরাল স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী রয়েছে।টেস্ট-টিউব সমীক্ষায় পরামর্শ দেওয়া হয় যে ক্যাটচিনগুলি ব্যাকটিরিয়ার বৃদ্ধি দমন করতে পারে, সংক্রমণের ঝুঁকি সম্ভাব্যভাবে হ্রাস করে।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাটচিনগুলি মুখের ব্যাকটেরিয়াগুলির বৃদ্ধি বাধা দিতে পারে, যাতে মুখে দুর্গন্ধের ঝুঁকি হ্রাস হয়।

৮।একটি পূর্ববর্তী পর্যবেক্ষণ গবেষণায় দেখা যায় যে লোকেরা প্রতিদিন ছয় বা তার বেশি কাপ গ্রিন টি গ্রহণ করেন তাদের টাইপ 2 ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি ছিল 33%, যারা প্রতি সপ্তাহে এক কাপের চেয়ে কম পান করেছেন তাদের তুলনায়।

৯। গবেষণা পরামর্শ দেয় যে জাপানী প্রাপ্ত বয়স্কদের যারা প্রতিদিন চার বা চার কাপ বেশি গ্রিন টি পান করেন তাদের মধ্যে হতাশার ঝুঁকি 44% থেকে 51% কম থাকে যারা এক কাপ বা তার চেয়ে কম পান করেন।

১০।দাঁত অপসারণ শল্য চিকিত্সার পরে দিনের শুরুতে প্রতিদিন দু’বার গ্রিন টিয়ের নির্যাসযুক্ত মাউথওয়াশ ব্যবহার ব্যথা এবং ব্যথানাশক ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা হ্রাস করে।

 

অপকারীতাঃ

১।গ্রিন টি পান করায় রক্তাসল্পতা আরও খারাপ হতে পারে।

২।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাফিন দুঃচিন্তা আরও বেশি খারাপ করতে পারে।

৩।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাফিন রক্তপাতের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে। আপনার যদি রক্তক্ষরণের ব্যাধি থাকে তবে গ্রিন টি পান করবেন না।

৪।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাফিন রক্তে শর্করার নিয়ন্ত্রণকে প্রভাবিত করতে পারে। আপনি যদি গ্রিন টি পান করেন এবং ডায়াবেটিস পান করেন তবে আপনার রক্তে চিনির যত্ন সহকারে নিরীক্ষণ করুন।

৫।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাফিন, বিশেষত যখন প্রচুর পরিমাণে গ্রহণ করা হয়, তখন ডায়রিয়া আরও খারাপ হতে পারে।

৬।গ্রিন টিতে থাকা ক্যাফিন উচ্চ রক্তচাপযুক্ত লোকদের রক্তচাপ বাড়িয়ে দিতে পারে। তবে, নিয়মিত গ্রিন টি বা ক্যাফিনযুক্ত অন্যান্য পণ্য পান করে এমন লোকদের ক্ষেত্রে এটি দেখা যায় বলে মনে হয় না।

৭।গ্রিন টির এক্সট্রাক্ট সাপ্লিমেন্ট লিভারের ক্ষতির কারন হতে পারে। গ্রিন টিয়ের নির্যাস লিভারের রোগকে আরও খারাপ করতে পারে।


গ্রীন টি এর উপকারিতা,গ্রীন টি এর উপকারিতা ও অপকারিতা,গ্রীন টি বানানোর নিয়ম,গ্রীন টি এর দাম,গ্রীন টি খাওয়ার নিয়ম
গ্রীন টির উপকারিতা,গ্রীন টি কোনটি ভালো,গ্রীন টি ক্রিম,গ্রীন টি কিভাবে বানায়,গ্রিন টি এর উপকারিতা,গ্রীন টি এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া,
গ্রীন টি এর উপাদান,গ্রীন টি এর দাম কত,গ্রীন টি এর ব্যবহার,kfplanet.com,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *