বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১-বিটাক কোর্স প্রশিক্ষণ বিজ্ঞপ্তি 2021

শিল্প গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র (আইআরডিসি) এবং শিল্প উৎপাদনশীলতা সেবা (আইপিএস) একীভূত করে শিল্প-বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন Pakistan Industrial Technical Assistance Center (PITAC) প্রতিষ্ঠিত হয়২৬-৫-১৯৬২।  ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর নামকরণ হয় বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক)। এই অনুচ্ছেদে বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১ নিয়ে আলোচনা করব।  বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক)এর প্রধান কাজ দক্ষ জনশক্তি তৈরি, আমদানি বিকল্প যন্ত্র/যন্ত্রাংশ তৈরি, গবেষণা ও উন্নয়ন দ্বারা প্রযুক্তির উদ্ভাবন ও হস্তান্তর করা। বাংলাদেশে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে প্রতি বছর বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রাকাশ করে।

বাংলাদেশে এই প্রতিষ্ঠানটি ১৯৬২ হতে ২০১৯ পর্যন্ত বিটাক বাই-লজ দ্বারা পরিচালিত হয়েছে। কিন্তু ২০১৯ সালের  শিল্প সচিবের নেতৃত্বে ১১ সদস্য বিশিষ্ট পরিচালনা পর্ষদ এর মাধ্যমে বিটাক পরিচালিত করা হচ্ছে । এই প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী হলেন মহাপরিচালক।

বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১

এই দেশের বড় একটি জনগন বেকার হয়ে বসে আছে  এই সব শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত এমনকি অশিক্ষিত বেকারদেরও জীবনের পথ দেখাচ্ছে  বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক)। বিটাকের প্রশিক্ষণ  এর মাধ্যমে অনেকে স্বাবলম্বী হচ্ছে। বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি মাধ্যমে এই দেশের নারী ও পুরুষের বিভিন্ন প্রকার প্রশিক্ষণ দিয়ে সকলের জীবন যাত্রা পথ সুগম করছে।

চলুন বিটাক ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দেখে নিই

 

দক্ষজনশক্তি সৃষ্টির লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক) শিল্প মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠানটি দেশে কারিগরি বিভিন্ন প্রকার প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে। বাংলাদেশে জনগণকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্যে বিটাকে আছে অনেক দক্ষ প্রশিক্ষক আধুনিক অনেক যন্ত্রপাতি। প্রত্যাক প্রশিক্ষণার্থীরা নিজ জ্ঞানের পাশাপাশি একটি নিদিষ্ট কাজের উপর খুব ভাল দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা অর্জন করে। বিটাকে প্রশিক্ষিত দেওয়া কাজের উপর জনবলদের দেশে ও দেশের বাইরে অনেক চাহিদা রয়েছে।

বর্তমানে পৃথিবী তথা সারাদেশে কোভিড-১৯ মহামারীকারণে যে  লকডাউন ঘোষণা করার কারণে প্রশিক্ষণে আগ্রহী প্রাথিগদের আবেদন করতে না পারায় প্রশিক্ষনার্থীদের পুনরায় আবেদনের করার সুবিধার্থে বিটাকে
৬ টি ট্রেড কোর্সে ভর্তি কার্যক্রম আগামী ২২/০৮/২০২১ ইত তারিখ পর্যন্ত বর্ধিত ঘোষণা করেছে।

বর্ধিত বিভিন্ন কোর্স ও এর মেয়াদ এবং কত খরচ হতে পারে সে সব বিষয় গুলি নিচে খুব সুন্দর ভাবে দেওয়া হল

 ট্রেডের নামের তালিকা   ট্রেডের আসন সংখ্যা     মোট খরচ       ট্রেডের মেয়াদ
       মেশিনশপ     ২৫ জন      ৫০০০  ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।
      ওয়েন্ডিং     ২৫ জন      ৭৫০০ ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।
      ইলেকট্রিক্যাল                       মেইনটেন্যান্স     ২৫ জন      ৮০০০ ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।
    মেশিন মেইনটেন্যান্স     ২৫ জন      ৫০০০  ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।
    ফাউন্ড্রি প্যাটার্ন মেকিং     ৫ জন      ৫০০০ ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।
    অটোমোবাইল এন্ড

অটো ইলেক্ট্রিসিটি

   ১০ জন      ৫০০০ ২২/৮/২০২১ থেকে ২৫/১১/২০২১ পর্যন্ত।

 

প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত যাবতীয় সকল তথ্যাদি

শিক্ষাপত যোগ্যতা

  • ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং/ এইচএসসি (ভোকেশনাল) / এসএসসি (ভোকেশনাল) / টিটিসি / কারিগরি
    কাজের অভিজ্ঞতা সহ এসএসসি / বা সমমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা ।
  •  সরকারী /আধাসরকারী / এবংব্যাক্তিমালিকাধীন প্রতিষ্ঠানের প্রাথীদের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা শিহিলযোগ্য করা হয়েছে।

বিটাকে আবেদন করার সময়সীমাঃ

বিটাকে আবেদন করার সময় ২২/৮/ ২০২১ পর্যন্ত

একটি তথ্যঃ ইতিপূর্বে যারা আবেদন করেছেন সে সব প্রাথীদের আবেদন করার প্রয়োজন নেই।

লাইব্রেরী সুবিধাঃ. বিটাকে কারিগরি বিষয়ক বিভিন্ন প্রকার বই, জানল সমৃদ্ধ একটি লাইব্রেরী আছে যা প্রশিক্ষণকালে সকল প্রাথী গন সকল ধরনের বই ব্যবহার করতে পারবেন ।

ক্লাসের সময়সূচীঃ

সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিন ব্যাতিত প্রতিদিন সকাল ৯:০০ থেকে বিকাল ৫০০০ পর্যত ক্লাস করানো হয়।

ফেসবুক: https:// www.facebook .com/bitachq

ওয়েব সাইট:  www.bitac.gov.bd

 ফোন: +৮৮-০২-৮৮৭০৫৬২,
ইমেইলঃ trainingdhaka@bitac.gov.bd

 

বিটাকঃ  ১৯৬২  পাকিস্তান আমলে প্রতিষ্ঠিত হয় কিন্তু বাংলাদেশে ১৯৭২ সালে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক) নামকরণ করা হয়। বিটাকের প্রধান উদ্দেশ্য হল প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জন শক্তি গড়ে তোলা। শিল্প সচিবের নেতৃত্বে ১১ সদস্য বিশিষ্ট পরিচালনা পর্ষদ দ্বারা বিটাক পরিচালিত হচ্ছে। শিল্পখাতকে কারিগরি সহায়তা প্রদানের উৎকৃষ্ট কেন্দ্রে রুপান্তর। খুচরা যন্ত্র অথবা যন্ত্রাংশ তৈরি ও মেরামতপূর্বক শিল্প প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন কার্যক্রমে গতিশীলতা আনয়ন করাও এর একটি লক্ষ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *