বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি 2020-21

আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মিলাতে বাংলাদেশে যে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বা বুয়েট অন্যতম। আজ আমরা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা করব। শতাব্দী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য বিজ্ঞান ভিত্তিক লেখা পড়ার কোন বিকল্প নেই। পৃথিবীর যে দেশ আধুনিক শিক্ষার দিক যত বেশি জোর দেয় সে দেশ তত দ্রুত উন্নতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করছে। বুয়েটে বিজ্ঞান ভিত্তিক বিভিন্ন তথ্য নিয়ে গবেষণা করা হয়। বাংলাদেশের প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রির স্বপ্ন থাকে বুয়েটে পড়ে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া। তবে , ইচ্ছা হলেই বুয়েটে ভর্তি হতে পারবেন না, এখানে ভর্তি হওয়ার জন্য কিছু শর্ত দেওয়া থাকে সে শর্ত অনুসারে এখানে ভর্তি নেওয়া হয়। আজ আমরা বুয়েটের ভর্তির কি কি বিষয় থাকে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করব।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশবিদ্যালয়ঃ বাংলাদেশে শীর্ষ স্থানীয় প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে বুয়েট অন্যতম। ১৮৭৬ ঢাকার পলাশী নামক স্থানে ঢাকা সার্ভে স্কুল নামে যাত্রা শুরু করে। তারপর নাম পরিবর্তন করে আহসানউল্লাহ স্কুল রাখা হয়, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এটির নাম হয় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানে ১০,০০০ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী ৬০০ বেশি শিক্ষক আছে। বুয়েটে বর্তমানে ৫ টি অনুষদে ১৮ টি বিভাগ চালু আছে। বুয়েটে কিছু সুযোগ সুবিধা আছে তার মধ্যে অন্যতম হল মিলনায়তন, লাইব্রেরী, ব্যায়ামগার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, এবং ৮ টি হল সুবিধা রয়েছে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি 2020-21

মহামারি কোভিড-১৯ বৈশ্বিক সমস্যার কারনে এই বছর স্বাস্থ্য বিধি মেনে দুই ধাপে প্রাক-নির্বাচনী এবং মূল ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা চারটি শিফটে নেওয়া হবে, এই পরীক্ষায় মেধার ভিত্তিতে উত্তিন্ন হওয়ার পর মূল ভর্তি পরীক্ষায় বসার সুযোগ দেওয়া হবে।

যে কয়টি অনুষদে আবেদন করা যাবেঃ  বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে  মোট ৫ টি অনুষদ আছে ,এ অনুষদের বিভিন্ন বিভাগে ছাত্র-ছাত্রীদের আবেদন করতে হবে। অনুষদ সমূহ

১। প্রকৌশল

২। পুরকৌশল

৩। যন্ত্রকৌশল

৪। তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল

৫। স্থাপত্য ও পরিকল্পনা

যে সকল ছাত্র-ছাত্রি আবেদন করতে পারবেনঃ

*যে সকল ছাত্র-ছাত্রি ২০১৭/২০১৮ সালে মাধ্যমিক বা সমমান পাশ।

*যে সকল ছাত্র-ছাত্রি ২০১৯/২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমান পাশ।

*২০১৬ সালের নভেম্বর ও তার পরে O লেভেল এবং ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে ২০২০ সালের অক্টোবার পর্যন্ত A লেভেল পরীক্ষায় ফলাফল প্রাপ্ত ছাত্রছাত্রী আবেদন করতে পারবেন।

যোগ্যতা সমূহঃ

বুয়েটে আবেদনের জন্য যোগ্যতা প্রয়োজন, সবাই আবেদন করতে পারবেন না । আমরা খুব সুন্দর ভাবে এই বিষয় টি আপনাদের সামনে তুলে ধরব।

  • প্রাথীকে অবশ্যই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/ কারিগরি বোর্ড/ মাদ্রাসা বোর্ড থেকে বিজ্ঞান বিভাগে রসায়ন/ পদার্থ বিজ্ঞান/ গণিত সহ গ্রেড পদ্ধতি জিপিএ ৫ এর মধ্যে জিপিএ ৪ পেতে হবে।  প্রাথীকে উচ্চ মাধ্যমিক/ আলিম ও সমমান পরীক্ষায় রসায়ন/ পদার্থ বিজ্ঞান/ গণিত বিষয়গুলোতে গ্রেড পদ্ধতিতে জিপিএ ৫ এর মধ্যে জিপিএ  ৫ পেতে হবে , এবং মাধ্যমিক /দাখিল/ সমমান পরীক্ষায় রসায়ন/ পদার্থ বিজ্ঞান/ গণিত ৩ টি বিষয়ে ৩০০ নম্বরের মধ্যে ২৭০ পেয়ে উত্তীন্ন হতে হবে।
  • যে সকল প্রাথী ২০১৭ সালে মাধ্যমিক ও সমমান পাশ এবং ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীন্ন হয়েছে কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সংশোধিত ফলাফল ১০ সেপ্টম্বর ২০১৯ তারিখের পরে প্রকাশিত হয়েছে সেক্ষেত্রে রসায়ন/ পদার্থ বিজ্ঞান/ গণিত এই তিনটি বিষয়ে ৬০০ নম্বরের মধ্যে ৪৮০ নম্বর পেতে হবে। বিদেশি শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমান পরীক্ষায় সমতুল্য নম্বর বা গ্রেড পেতে হবে।
  • সঠিক আবেদনের পর উল্লেখিত নম্বরের উপর ভিত্তি করে ১ থেকে ২৪০০০ তম ছাত্র-ছাত্রিদের প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে দেওয়া হবে। আবেদেন কারির মাধ্যমিক পরীক্ষায় গণিত ,রসায়ন, পদার্থ বিজ্ঞান তিনটি বিষয়ের মোট নম্বর থেকে গনিতের প্রাপ্ত নম্বর ও পদার্থ বিজ্ঞানের প্রাপ্ত নম্বরের উপর ভিত্তি করে ক্রম নাম্বার সাজানো হবে।
  • O লেভেল পাশ করা প্রার্থীদের জন্য গণিত, রসায়ন, পদার্থ বিজ্ঞান ও ইংরেজি বিষয় সহ মোট পাঁচটি বিষয়ে প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষায় B গ্রেড পাওয়া লাগবে।  A  লেভেল পাশ করা প্রার্থীদের গণিত, রসায়ন, পদার্থ বিজ্ঞান তিনটি বিষয়ে প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষায় A গ্রেড পাওয়া লাগবে।
  • ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ভুক্ত সকলকেই নুনতম যোগ্যতা  থাকলে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংগ্রহন করতে পারবে।
  • প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষা চারটি শিফটে নেওয়া হবে
  • প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষায় ১ম থেকে ৬০০০তম মেধাক্রম পরীক্ষার্থী দের মূল ভর্তি পরীক্ষায় সুযোগ দেওয়া হবে।

আসন সংখ্যাঃ

মোট আসন সংখ্যা ১২১৫ টি এর মধ্যে ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীদের জন্য ্প্রকৌশল বিভাগসমূহ এবং নগর ও পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট ৩ টি ও স্থাপত্য বিভাগে ১ টি করে সংরক্ষিত আসন থাকে।

আবেদন করার নিয়মঃ

আবেদন করার নির্দেশিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েব সাইটে পাওয়া যাবে। ওয়েব সাইটের নির্দেশিকা মোতাবেক ফরম পূরণ করে সঠিক ভাবে সাবমিট করতে হবে। সাবমিট করার পর একটি application সিরিয়াল নম্বর প্রদান করা হবে, ঐ নম্বরের বিপরীতে সোনালি ব্যাংকে ফি জমা দিতে হবে। দুইটি গ্রুপের জন্য আলাদা টাকা জমা দিতে হবে

আবেদন ও প্রাক প্রাথমিক এবং মূল ভর্তি পরীক্ষার জন্য

১। প্রকৌশল বিভাগ সমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য   ১০০০  টাকা

২। প্রকৌশল বিভাগ সমূহ,নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ, এবং স্থাপত্য বিভাগ ১২০০ টাকা

অনলাইনে আবেদন শুরুঃ

আবেদন শুরু ১৫ আপ্রিল ২০২১ সকাল ১০ টা থেকে

আবেদন শেষ তারিখঃ

আবেদনের শেষ তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০২১ বিকাল ৩ টা পর্যন্ত

প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষার আবেদন কারির তালিকা প্রকাশঃ

তালিকা প্রকাশ করবে ৫ মে ২০২১  বুধবার

প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষার তাবিখঃ

প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষা হবে ৩১ মে ২০২১ সোমবার এবং ১ জুন ২০২১ মঙ্গলবার

নতুন প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষার তারিখঃ ৩০ জুন ২০২১ বুধবার এবং ১ জুলাই ২০২১ বৃহস্পতিবার

৩০ জুন ২০২১ বুধবার পরীক্ষা হবে -শিফট ১ – ক , খ গ্রুপ সকাল ১০ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত

শিফট ২- ক , খ গ্রুপ বিকাল ৩ থেকে ৪ টা পর্যন্ত

১ জুলাই ২০২১ বৃহস্পতিবার পরীক্ষা হবে শিফট ১- ক , খ গ্রুপ সকাল ১০ থেকে ১১ টা পর্যন্ত

শিফট ২-ক , খ গ্রুপ বিকাল ৩ থেকে ৪ টা পর্যন্ত

মূল ভর্তি পরীক্ষার আবেদন কারীদের তারিখ  ঘোষণা করা হবেঃ

১ জুলাই ২০২১ বৃহস্পতিবার প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষার পর

মূল ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ

১০ জুলাই ২০২১ শনিবার

মডিউল A – ক গ্রুপ এবং খ গ্রুপ -গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন –  সকাল ১০ থেকে ১২ টা পর্যন্ত

মডিউল B – খ গ্রুপ – মুক্তহস্ত অংকন( Freehand Drawing), দৃষ্টিগত ও স্থানিক ধীশক্তি (Visual – spatial Intelligence)  বিকাল ২ থেকে ৩.৩০ পর্যন্ত

ভর্তির জন্য নির্বাচিত প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশঃ 

১ জুলাই ২০২১ বৃ্হস্পতিবার

দৃষ্টি আকর্ষণঃ

*  ২৪ এপ্রিল ২০২১ শনিবার বিকাল ৩ তার পর আবেদন করা যাবে না

*  প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষায় ক ও খ গ্রুপে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে

*  কালো বল পয়েন্ট দ্বারা বৃত্ত ভরাট করতে হবে ,পেন্সিল , জেল পেন ব্যবহার করা যাবে না

*  মূল ভর্তি পরীক্ষায় মডিউল A এবং মডিউল B এর প্রতিটি প্রশ্ন প্রচলিত পদ্ধতিতে মুল্যয়ন করা হবে ,MCQ  থাকবে না

*  মহামারী কোভিড ১৯ এর কারনে কোন পরীক্ষার সময় সূচি পরিবর্তন হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হবে।

বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার যোগ্যতা,বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা, বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন, বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন, বুয়েট আবেদন, বুয়েট আবেদন যোগ্যতা,বুয়েট এ ভর্তির যোগ্যতা, বুয়েটে ভর্তির যোগ্যতা, বুয়েটে ভর্তির যোগ্যতা ২০২১, বুয়েট ভর্তি সম্পর্কিত তথ্য, বুয়েটে চান্স পাওয়ার যোগ্যতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *