Skip to content

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ও ভর্তির যোগ্যতা ২০২২

    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২ প্রকাশ করেছে। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশে উচ্চ শিক্ষার প্রসার ও মান  উভয়েই বাড়ছে। আপনি ভাল একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল করতে চাইলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে করতে পারেন। এমফিল করতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে।

    পছন্দের এলাকায় পার্টটাইম/ফুলটাইম চাকরি খুঁজে পেতে এই অ্যাপটি ইন্সটল করে এখনই আবেদন করুন

    কতৃপক্ষ বিজ্ঞপ্তিতে যে যোগ্যতা চেয়েছে সেগুলি যদি আপনার মধ্যে থাকে তবে আপনি আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করতে যাবতীয় তথ্য এখানে তুলে ধরা হবে। আবেদনের মাধ্যম, আবেদনের শেষ সময়, যোগ্যতা সহ যাবতীয় তথ্য দেওয়া হবে। যে কোন তথ্যের জন্য আমাদের অনুচ্ছেদটি মনোযোগ সহকারে পড়তে পারেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় যে কোন শিক্ষার্থী আগ্রহ থাকে এখানে পড়াশুনার করার। শিক্ষার্থীদের ইচ্ছা পূরণ করার জন্য চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি হতে পারে।

    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২

    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে এমফিল-পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য আবেদন শুরু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অনুষদের অন্তর্ভুক্ত বিভাগ, ইনস্টিটিউট এবং জামাল নজরুল ইসলাম গণিত ও ভৌত বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রে এমফিল-পিএচডি প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য এ আবেদন শুরু হয়েছে। এমফিল করতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে।

    চবির ওয়েবসাইট থেকে আবেদন ফরম ডাউনলোড করে এমফিল ও পিএইচডি উভয় ক্ষেত্রে ফি বাবদ গবেষণাবৃত্তিসহ ৭০০ টাকা এবং গবেষণাবৃত্তি ছাড়া ৫০০ টাকার অগ্রণী বা জনতা ব্যাংকের যে কোনো শাখা থেকে ইস্যুকৃত রেজিস্ট্রার বরাবর ব্যাংক বা ড্রাফট বা পে-অর্ডারসহ আবেদন ফরম আগামী ৩১ আগস্ট ২০২২ এর মধ্যে পাঠাতে হবে। আবেদন পত্রের সাথে অবশ্যই ব্যাংক বা ড্রাফট বা পে-অর্ডার এর মূল কপি সংযুক্তি করতে হবে।

    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল  ভর্তির যোগ্যতা ২০২২

    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল  ভর্তির যোগ্যতা ২০২২ সকল যোগ্যতা গুলি নিচে আলোচনা করব , আপনি এই যোগ্যতা সম্পূর্ণ হলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

    এমফিল ভর্তির যোগ্যতা

    • যে কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রীধারী প্রার্থীরা যে কোন একটি শর্ত পূরণ সাপেক্ষে এম.ফিল প্রোশামে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন।
    • বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমমান ডিগ্রী ধারীরা এমফিল আবেদনের যোগ্য হবে
    • এম. ফিল প্রোগামে ভর্তির ক্ষেত্রে  বিভাগ/ইনস্টিটিউট কর্তৃক লিখিত পরীক্ষা গ্রহণ এবং উত্তীর্ণদের ক্ষেত্রে জমাকৃত synopsis সাক্ষাৎকার পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

    এমফিল ভর্তির অন্যান্য যোগ্যতাঃ

    • প্রার্থীদের-৩/৪ বছর মেয়াদী অনার্স ও ১ বছর মেয়াদী মাস্টার্স উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বরসহ ২য় শ্রেণী অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ ক্ষেলের মধ্যে ৩.২৫ এবং এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি বা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বরসহ দ্বিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫ ক্ষেলের মধ্যে ৩.৫০ থাকতে হবে।
    • যে সকল প্রার্থীর অনার্স নাই তাদের ডিশ্রীপোস) অথবা মাস্টার্স ডিগ্রির যে কোন একটিতে ১ম শ্রেণী অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ছ্ষেলের এর মধ্যে ৩.৭৫ এবং অপরটিতে ৫৫% নম্বরসহ দ্বিতীয় শ্রেণী অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ মধ্যে ৩.৫০ এবং এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি বা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫ মধ্যে ৩.৫০ থাকতে হবে
    • বিএস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং ও এমএস.সি ইঞ্জিনিয়ারিং বা বিএস. সি(এগ্রিকালচার) ও এমএস.সি (এগ্রিকালচার) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ৫৫% নম্বরসহ দ্বিতীয় শ্রেণী অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ মধ্যে যে কোন একটিতে ৩.৫০ ও অপরটিতে ৩.২৫ এবং এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি বা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫ক্ষেলের মধ্যে ৩.৫০ থাকতে হবে।
    • .সরকারী মেডিকেল কলেজ হতে উত্তীর্ণ এম.বি.বি.এস/বি:ডি.এস/ডি.ভি.এম ডিন্রীধার প্রার্থীরা উক্ত প্রোথামে
      ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

    পিএইচডি প্রোগ্রাম ভর্তি যোগ্যতা

    • যে কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রয়োজনীয় শিক্ষা যোগ্যতা সম্পূর্ণ ব্যাক্তিরা যে কোন শর্ত পূরণ সাপেক্ষে পিএইচডি ভর্তির আবেদন করতে পারবেন।

    পিএইচডি ভর্তির অন্যান্য যোগ্যতাঃ

    • এম.ফিল ডিগ্রী ধারী।
    • বিদেশী হয় মাস্টার্স ডিগ্রী ধারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রী কমপক্ষে ৫০% নম্বরসহ দ্বিতীয় শ্রেণী অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ ক্ষেলের মধ্যে ৩.২৫ এবং এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি বা সমমানের পরীক্ষায় ৫৫% নম্বরসহ দ্বিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫ ক্ষেলের মধ্যে ৩.৫০ থাকতে হবে।
    • এক বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ উক্ত প্রোথামে ভর্তির যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন।
    • বাংলাদেশের অন্য যে কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক যাদের ৩ বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা আছে এবং যাঁদের অনার্স ও মাস্টার্স ডিঘ্বীতে কমপক্ষে ৫০% নম্বর অথবা সিজিপিএ/জিপিএ ৪ স্কেলের মধ্যে ৩.৫০ এবং এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি অথবা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে ছিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫ ক্ষেলের মধ্যে ৩.৫০ আছে এবং স্বীকৃত মানের জার্নালে প্রকাশিত কমপক্ষে ২টি গবেষণা প্রকাশনা আছে তাঁরা উক্ত প্রোথামে ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।
    • বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ শিক্ষকদের মধ্যে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে ০৫ (পাচ) বৎসরসহ কমপক্ষে ০৭ (সোত) বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা আছে এবং যাঁদের উত্ত শিক্ষকতা জীবনে স্বীকৃত মানের জার্নালে প্রকাশিত কমপক্ষে ২দুই)টি গবেষণা প্রকাশনা তাঁরা উপরোক্ত যে কোন একটি শিক্ষাগত যোগ্যতার শর্ত পূরণ সাপেক্ষে পিএইচ.ডি কোর্সে ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।
    • অন্র বিশৃবিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারী মেডিকেল কলেজের শিক্ষকদের মধ্যে যাদের মাস্টার্স/এম.ফিল ডিগ্রিসহ ৫ বৎসরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা আছে এবং উক্ত শিক্ষকতা জীবনে সম্পন্ন করা স্বীকৃত মানের জার্নালে প্রকাশিত কমপক্ষে ২(দুই) টি গবেষণা প্রকাশনা আছে তাঁরা পিএইচডি কোর্সে ভর্তি যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন।
    • উপরোক্ত যে কোন একটি শিক্ষাগত যোগ্যতার শর্ত পূরণ সাপেক্ষে এম.ফিল/বিদেশী ২য়মাস্টার্স ডিহীধারী সরকারী গবেষণা প্রতিষ্ঠানে কমপক্ষে ১০(দেশ) বছরের চোকুরীর অভিজ্ঞতা স্টন্ন গবেষণা কর্মকর্তবৃন্দের স্বীকৃত মানের জার্নালে প্রকাশিত কমপক্ষে ০২(দুই)টি গবেষণা প্রকাশনা আছে তাঁরা ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

    আবেদনের  নিয়ম

    বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইট থেকে আবেদন ফরম ডাউনলোড করে প্রয়োজনীয় সকল কাগজ পত্র সহ আগামী ৩১ আগস্ট ২০২২  এর মধ্যে নিদিষ্ট ঠিকানায় পাঠাতে হবে। আবেদন পত্রে কোন তথ্য ভুল করা যাবে না , তাহলে কতৃপক্ষ আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    "কনটেন্ট চুরি করে নিজকে চোর প্রমাণ করবেন না" KFPlanet